কাবুলে শিয়া জমায়েতে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৭

কাবুলে শিয়া জমায়েতে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৭

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শিয়া মুসলমানদের জমায়েত লক্ষ্য করে চালানো এক আত্মঘাতী হামলায় অন্তত সাতজন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার শিয়া হাজারা সম্প্রদায়ের কয়েকশ মানুষ ১৯৯৫ সালে তালেবানের হামলায় নিহত নেতা আবদুল আলি মাজারির স্মরণে কাবুলের মসাল্লা-ই-মাজারে ওই জমায়েতের ডাক দিয়েছিল।

সেখানেই আত্মঘাতী জঙ্গি বিস্ফোরণ ঘটান বলে আফগান কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নিহতদের মধ্য একজন পুলিশ সদস্য, বাকিরা বেসমারিক।

আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাজিব দানিশ জানান, আত্মঘাতী হামলাকারী মূল জমায়েতের দিকে অগ্রসর হতে চাইলেও পুলিশ তাকে নিরাপত্তা চেকপয়েন্টে আটকায়, এরপরই বিস্ফোরণ ঘটে।

নিহতের সংখ্যা নিয়ে সরকারি ভাষ্যে অনেকের আপত্তি আছে বলেও রয়টার্স জানিয়েছে। হামলায় ৭ জনের বেশি নিহত হয়েছেন বলে দাবি অনেক প্রত্যক্ষদর্শীর; ঘটনাস্থলে থাকা এক নিরাপত্তা কর্মকর্তাও নিহতের সংখ্যা ১৩ বলে জানিয়েছেন।

শিয়া সম্প্রদায়ভুক্তরা তাদের নেতা মাজারির নিহত হওয়ার বার্ষিকী উদযাপনে এ জমায়েতের ডাক দিয়েছিল; ২৩ বছর আগে এই দিনে তালেবানের হামলায় তার মৃত্যু হয়েছিল।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) শুক্রবারের হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে। এর আগেও গত দুই বছর ধরে গোষ্ঠীটি বেশ কয়েকটি শিয়া মসজিদে হামলা ও হাজারা জমায়েতে হামলা চালিয়েছিল।

সুন্নি অধ্যুষিত আফগানিস্তানে তালেবানদের সক্রিয়তার মধ্যে আইএসের উপস্থিতি ও সক্ষমতা নিয়ে পশ্চিমা বিশ্লেষকরা বেশ সন্দিহান। গোষ্ঠীটি একা কাজ করছে না বলেও ধারণা তাদের।

গত বছরের ডিসেম্বরে শিয়া কালচারাল সেন্টারে হামলার দায়ও স্বীকার করেছিল আইএস; অক্টোবরে পৃথক দুই মসজিদে তাদের হামলায় অন্তত ৭২ জন নিহত হন।