হজযাত্রা নিয়ে যা বললেন মোদি

হজযাত্রা নিয়ে যা বললেন মোদি

ভারতের রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’-এ (মনের কথা) মুসলিমদের হজযাত্রা নিয়ে কথা বললেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল রোববার বছরের শেষ দিনে প্রচারিত হয় অনুষ্ঠানটি।

মোদি বলেন, হজযাত্রায় যাওয়ার ক্ষেত্রে পুরুষ অভিভাবকদের সঙ্গে নেওয়ার প্রচলিত রীতি নারীদের প্রতি অবিচার। সরকার সেই রীতি তুলে দিয়েছে। এর ফলে কয়েকশ নারী যাঁরা আলাদাভাবে হজযাত্রায় যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন, তাঁদের সামনে আর কোনো বাধা রইল না।


মোদি আরো বলেন, ‘পুরুষ অভিভাবক ছাড়া মুসলিম নারীরা হজে যেতে পারবেন না—এ ধরনের বৈষম্যের কারণ খুঁজে পেয়ে আমি প্রথমে অবাক হয়ে যাই। পরে কারণ খুঁজতে গিয়ে বুঝতে পারি, স্বাধীনতার ৭০ বছর পরেও আমরাই এ ধরনের নীতি তৈরি করে রেখেছি। বিগত কয়েক দশক ধরে মুসলিম নারীর প্রতি অবিচার হয়ে আসছে। অথচ এটা নিয়ে কেউ উচ্চবাচ্য করেনি।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, ‘এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা বহু মুসলিমপ্রধান দেশেও নেই। তবে আমি খুশি যে, ভারতে প্রায় এক হাজার ৩০০ মুসলিম নারী-পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই একা হজে যাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। মূলত হজযাত্রার জন্য আবেদনকারীদের লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত করা হয়। কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘুবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছিলাম, একা যেতে চাওয়া নারীদের যেন এই তালিকা থেকে পৃথক করা হয়।’

সম্প্রতি ভারতের কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘুবিষয়ক মন্ত্রণালয় জানায়, ৪৫ বছর বা তার বেশি বয়সের মুসলিম নারীরা পুরুষ অভিভাবক ছাড়াই হজে যেতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে একটি দলে অন্তত চারজন করে নারী সদস্য থাকতে হবে।

মন্তব্য নেই

উত্তর