প্রধান বিচারপতি ‘অবসাদগ্রস্ত’, বিদেশে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে চিঠি

প্রধান বিচারপতি ‘অবসাদগ্রস্ত’, বিদেশে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে চিঠি

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ১৩ অক্টোবর থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত বিদেশে যাওয়ার জন্য অনুমতি চেয়ে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করে একটি চিঠি দিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে চিঠিটি আইন সচিবের দপ্তরে এসে পৌঁছায়।

চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রধান বিচারপতি শারীরিকভাবে অসুস্থ ও মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত। বিদেশে তাঁর বিশ্রাম প্রয়োজন।

চিঠি পাওয়ার বিষয়ে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক দুলাল বলেন, ‘হ্যাঁ, প্রধান বিচারপতি মহোদয় বহিঃবাংলাদেশে যাওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করে একটি চিঠি দিয়েছেন। চিঠিটি আইন মন্ত্রণালয় হয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মাধ্যমে অনুমোদনের জন্য রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে যাবে।’

এর আগে আইন সচিব বলেছিলেন, ‘আমি শুনেছি প্রধান বিচারপতি অস্ট্রেলিয়ার দূতাবাসে পাঁচ বছরের ভিসার আবেদন করেন। আর উনি তিন বছরেরর জন্য ভিসার অনুমোদন পেয়েছেন। বিদেশে যেতে হলে প্রজ্ঞাপন প্রয়োজন।’

গত গত অক্টোবর এক মাসের ছুটির আবেদন করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। ছুটির কারণ হিসেবে তিনি ‘অসুস্থতা’র কথা উল্লেখ করেন। সেদিন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘দীর্ঘ এক মাস অবকাশ শেষে কোর্ট খোলার পর প্রথম দিন থেকেই তিনি ছুটিতে থাকবেন বলে জানিয়েছেন। তাঁর অবর্তমানে জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞা দায়িত্ব পালন করবেন।’

এর আগে গত ১০ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রধান বিচারপতি দেশের বাইরে ছুটিতে ছিলেন। ২৩ সেপ্টেম্বর তিনি দেশে ফেরেন।

প্রসঙ্গত, বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে নিতে করা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ১ আগস্ট প্রকাশের পর থেকে মন্ত্রী-এমপিদের কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েন প্রধান বিচারপতি। জাতীয় সংসদেও তাঁর সমালোচনা করা হয়।

মন্তব্য নেই

উত্তর