দক্ষিণ আফ্রিকার দাপটে কোণঠাসা বাংলাদেশ

দক্ষিণ আফ্রিকার দাপটে কোণঠাসা বাংলাদেশ

পচেফস্ট্রুম টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার আধিপত্যের পর ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছিল বাংলাদেশ। রোববার টেস্টের চতুর্থ দিনের শুরুতেই মোস্তাফিজুর রহমানের আঘাতে উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা। তবে এরপরই পাল্টা আঘাত হানে প্রোটিয়ারা। ফের একক আধিপত্য বিস্তার করে স্বাগতিকরা।

পচেফস্ট্রুমের সেনওয়েস পার্কে প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেটে ৪৯৬ রান তোলে ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শনিবার টেস্টের তৃতীয় দিনের শেষ সেশনের শুরুতে ৩২০ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। ১৭৬ রানে লিড পাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা শনিবার ২ উইকেটে ৫৪ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে। মধ্যাহ্ন বিরতির আগে নিজেদের লিড ৪০০’র কাছাকাছি নিয়ে যায় প্রোটিয়ারা।

 

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ২০৩ রান। ইতোমধ্যেই তাদের লিড ৩৭৯-তে উন্নীত হয়েছে। টেম্বা বাভুমা ৬৪ এবং ফাফ ডু প্লেসিস ৭৭ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। সকালের সেশনের শুরুতেই আমলা ফিরে যান ২৮ রান করে। আগের দিন আউট হওয়া এইডেন মার্করাম ১৫ এবং ডিন এলগার করেন ১৮ রান।

সকালে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকে আস্থার সঙ্গে খেলছিলেন বাভুমা ও আমলা। তবে দিনের চতুর্থ ওভারে মোস্তাফিজের আঘাতে হোঁচট খায় দক্ষিণ আফ্রিকা। মোস্তাফিজের করা ২১তম ওভারের প্রথমব বলে উইকেটের পেছনে লিটন দাসকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন আমলা। তবে এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি স্বাগতিকদের। চতুর্থ উইকেটে ১৪৯ বলে ১৩৩ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলকে চালকের আসনে নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যান বাভুমা ও ফাফ ডু প্লেসিস।

শনিবার দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে অষ্টম ওভারে প্রথম উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দলীয় ৩০ রানের মাথায় শফিউল ইসলামের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ডিন এলগার। রিভিউ নিয়েও আউট থেকে বাঁচতে পারেননি তিনি। এরপর মোস্তাফিজুর রহমানের করা ১১তম ওভারের শেষ বলে কাটারে পর্যদুস্ত হয়ে উইকেটের পেছনে লিটন দাসকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন প্রথম ইনিংসে ৯৭ রান করা অভিষিক্ত এইডেন মার্করাম। এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় উইকেটে শফিউল একটি এবং মোস্তাফিজ নেন দুটি উইকেট।

এর আগে শনিবার ৩ উইকেটে ১২৭ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ ৩২০ রানে গুটিয়ে যায়। বাংলাদেশের হয়ে মুমিনুল সর্বোচ্চ ৭৭ রান করেন। এছাড়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৬৬, মুশফিক ৪৪, তামিম ৩৯, সাব্বির রহমান ৩০, লিটন ২৫ এবং শেষ দিকে মোস্তাফিজুর রহমান করেন ১০ রান।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে কেশব মহারাজ তিনটি এবং দুটি করে উইকেট নেন মরনে মরকেল ও ক্যাগিসো রাবাদা। একটি করে উইকেট নেন ডোয়াইন অলিভিয়ে ও আন্দিলে ফেলুকওয়ে।

শুক্রবার টেস্টের দ্বিতীয় দিন ১ উইকেটে ২৯৮ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামা দক্ষিণ আফ্রিকা চা বিরতির আগ পর্যন্ত ৩ উইকেটে ৪৯৬ রান তোলা পরে আর ব্যাটিংয়ে না নেমে ইনিংস ঘোষণা করে। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে দারুণ ব্যাটিংয়ের দিনে ডাবল সেঞ্চুরি মিসের হতাশায় পুড়েন ডিন এলগার। ১৯৯ রান করে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে আউট হন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ব্যাটসম্যান এবং সবমিলিয়ে ১২তম খেলোয়াড় হিসেবে টেস্টে ১৯৯ রানের ইনিংস খেলেন এলগার। এদের মধ্যে দুজন সঙ্গীর অভাবে ১৯৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে এছাড়া আমলা ১৩৭, এইডেন মার্করাম ৯৭ রানের ইনিংস খেলেন। টেম্বা বাভুমা ৩১ এবং ফাফ ডু প্লেসিস ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

মন্তব্য নেই

উত্তর