গাবতলীতে সড়ক ডাকাত সিদ্দিক গ্রেফতার-জেল হাজতে প্রেরন

গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ-বগুড়ার গাবতলী থানা পুলিশ সড়ক ডাকাতীর পলাতক আসামী মোঃ সিদ্দিক মিয়া (৪৮)কে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

গাবতলী মডেল থানা সুত্রে জানাযায়, চলতি বছরের গত ৫ আগষ্ট মডেল থানার সাব-ইন্সেপেক্টর সাজ্জাদ হোসেন সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সনিয়ে গ্রেফতারী ওয়ারেন্ট তামিল ও মাদকদ্রব্য-অবৈধ উদ্ধার বিশেষ অভিযান চালাচ্ছিলেন। সুখান পুকুর বাজারে অবস্থান কালে রাত ১ টা ৪০ মিনিটে সংবাদ পান গাবতলী থানাধিন সোনারায় ইউনিয়নের আটাপাড়া হতে সৈয়দ আহম্মদ কলেজ সড়কের কুচিয়ামারী ব্রীজ সংলগ্ন একশত গজ দুরে পাকা সড়কের উপর বিভিন্ন ধারালো অস্ত্র কাঠের বাটাম, রড নিয়ে ২০/২৫ ব্যাক্তি সড়কে চলাচলরত যানবাহন থেকে ডাকাতি ও ছিনতাই করছেন। দ্রুত সেখানে পৌছে ২ ডাকাতকে আটক করলেও বাকিরা পালিয়ে যায়। যানবাহন থেকে লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করে।

এঘটনায় পরদিন মডেল থানার সাব ইন্সেপেক্টর সাজ্জাদ হোসেন বাদী হয়ে ডাকাত খায়রুলকে প্রধান করে ১৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৯/১০ জনকে আসামী করে ৬ আগষ্ট একটি ৯/২০৮ নং থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এইমামলার আসামী খায়রুল পুলিশের সাথে গোলাগুলিতে নিহত ও অপর আসামী আহত হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহম্মদ রুবেল মিয়া জানান ধৃত ডাকাত সিদ্দিক মিয়া পুলিশের তালিকায় সন্ধিগ্ধ ও দীর্ঘ ধরে পলাতক ছিল।

গত ১৫ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের রাতে কতিপয় সঙ্গিনিয়ে সিদ্দিক আবারো গাবতলী-সোনাতলা সড়কের পোড়াপাড়া নামক স্থানে ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। সংবাদপেয়ে নেপালতলী ইউনিয়নের চকডঙর গ্রামের মোসলেম প্রাং ছেলে সিদ্দিককে গ্রেফতার করা হয় ও বাকী ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরদির ১৬ ডিসেম্বর আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।