বিশ্বের সবচেয়ে মোটা মানুষের সংখ্যায় বাংলাদেশ কোথায়?

দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক মানুষই যদি অস্বাভাবিক মোটা হন, তখন সে বিষয় নিয়ে যে তুমুল চর্চা হবে সেটাই স্বাভাবিক।  সম্প্রতি এমনই এক প্রতুবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়। সেখানকার একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমন ১০টি দেশের নাম, যেখানে মোটা মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।  তবে এশিয়ার একটি দেশও এ তালিকায় ঠাই পায়নি।

অন্যদিকে স্থূল মানুষের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়তে। প্রথমে আছে ইথোপিয়া।  তৃতীয় নেপাল, চতুর্থ ইরিত্রিয়া, পঞ্চমে মাদাগাস্কার, ষষ্ঠ ও সপ্তমে ভিয়েতনাম ও কঙ্গো। অষ্টম-নবম-দশম স্থানে আছে ভারত, কম্বোডিয়া ও আফগানিস্তান।

এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক মোটা মানুষ অবস্থান করা দেশগুলোর নাম এবং আরও কিছু খুঁটিনাটি তথ্য।

১. ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
সমীক্ষায় ১০ নাম্বারে উঠে এসেছে এই দেশের নাম। দেশটি দক্ষিণ ক্যারিবিয়ান সাগরের একটি প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র। এর রাজধানীর নাম পোর্ট অফ স্পেন। এই দেশটিতে মোটা মানুষের বসবাস দেশের মোট জনসংখ্যার ৩০ শতাংশ।

২. ভেনিজুয়েলা
এই দেশটি পৃথিবীর ৪২তম জনবহুল রাষ্ট্র এবং জনসংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৭৭ লাখ ৩০ হাজার ৪৬৯ জন। এই দেশটিতে মোটা মানুষের সংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার ৩০.৮ শতাংশ।

৩. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
দেশটির জনসংখ্যা প্রায় ৩১ কোটি। সমীক্ষায় ৮ নাম্বারে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং এখানে বর্তমান মোটা মানুষের বসবাস দেশের মোট জনসংখ্যার ৩১.৮ শতাংশ।

৪. মেক্সিকো
জনসংখ্যার হিসাব করতে গেলে মেক্সিকো পৃথিবীর অত্যন্ত জনবহুল একটি রাষ্ট্র। সমীক্ষা অনুযায়ী এই দেশটিতে প্রতি বছরই মোটা মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে আর এখন তা দাঁড়িয়েছে দেশের মোট জনসংখ্যার ৩২.৮ শতাংশ।

৫. দক্ষিণ আফ্রিকা
এই দেশটিতে মোটা মানুষের সংখ্যাও অনেক। দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্তমান মোটা মানুষের সংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার ৩৩.৫ শতাংশ।

৬. সংযুক্ত আরব আমিরাত
এই দেশটির বর্তমান জনসংখ্যা প্রায় ৪৭ লাখ ৯৮ হাজার ৫০০। যার মধ্যে ৩৩.৭ শতাংশ মানুষই মোটা।

৭. জর্দান
এই দেশটিতে এখন মোটা মানুষের সংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার ৩৪.৩%।

৮. মিশর
মরুভুমি, নীলনদ আর পিরামিডের দেশ হল মিশর। বর্তমানে মিশরের মোটা মানুষের সংখ্যা দেশের মোট জনসংখ্যার ৩৪.৬ শতাংশ।

৯. সৌদি আরব
চিকিৎসকদের মতে, সৌদিতে প্রতি ১০০ জন মানুষের মধ্যে গড়ে ৪০ জন মানুষই মোটা এবং ধারণা করা হচ্ছে খুব দ্রুত হয়তো এই দেশটি সমীক্ষা ১ নাম্বার স্থানে চলে আসতে পারে। আপাতত এই দেশে মোটা মানুষের বসবাস হল দেশের মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশ।

১০. কুয়েত
উপসাগরীয় যুদ্ধের সময় মার্কিন সেনারা যখন প্রথম কুয়েত যায়, তখন তারাই সেখানে ফাস্টফুড-এর প্রচলন করে। সেই থেকেই কুয়েতেই নির্মাণ হয় অসংখ্য ফাস্টফুড-এর দোকান। আর এখন বর্তমান সমীক্ষা অনুযায়ী, এই দেশের ৪২.৮ শতাংশ মানুষই মোটা।