রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ড্রাগন ফল

আজকাল অনেক সুপার শপেই ড্রাগন ফল পাওয়া যায়। দেখতে কিছুটা অদ্ভুত হলেও এই ফলটি স্বাস্থ্যের জন্য দারুন উপকারী। কাঁচা খেতে ভাল না লাগলে বিভিন্ন সালাদের সঙ্গে মিশিয়েও ফলটি খেতে পারেন।

ক্যাকটাস জাতীয় গাছে ড্রাগন ফল হয়। অন্যান্য ক্যাকটাস ফলের মতো এই ফলটিরও কিছু স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে। যেমন-

১. ড্রাগন ফলে প্রচুর পরিমাণে লাইসোপিন থাকে যা প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

২. নিয়মিত ড্রাগন ফল খেলে দৃষ্টিশক্তি ভাল হয়। 

৩. ড্রাগন ফলে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি রয়েছে। প্রতি ১ কেজি ড্রাগন ফলে ৫২ ক্যালরি, কিছু প্রোটিণ, ভাল ফ্যাট এবং সহনীয় পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট ও ফাইবার রয়েছে। দিনের চাহিদার প্রায় এক তৃতীয়াংশ ভিটামিন সি, ১০ শতাংশ আয়রন পাওয়া যায় এক কেজি ড্রাগন ফলে।

ড্রাগন ফলে প্রচুর পরিমাণে ফ্রুটোজও থাকে যা রক্তে শর্করার পরিমাণ বাড়ায়। এ কারণে খুব বেশি পরিমাণে ড্রাগন ফল একবারে খাওয়া ঠিক নয়। 

৪. ড্রাগন ফলের বীজে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা থ্রি এবং ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে। নিয়মিত এটি খেলে শরীরের কার্যকারিতা বাড়ে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। 

৫. ড্রাগন ফলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি থাকে যা কার্বোহাইড্রেট ভেঙে হজমে সহায়তা করে। এছাড়া এতে থাকা বিভিন্ন ভিটামিন বি মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বাড়ায়, মেজাজ ঠিক রাখে, শরীরের শক্তি বাড়ায়, ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। 

৬. ড্রাগন ফলে ক্যালসিয়াম, আয়রন, এবং ফসফরাস রয়েছে। এতে থাকা ক্যালসিয়াম হাড় ও দাঁত শক্তিশালী করে। 

৭. ড্রাগন ফলে প্রচুর পরিমাণে ফাইটোকেমিক্যালস রয়েছে। এই উপাদানটি হৃৎপিণ্ড, ফুসফুস সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।