গ্রেফতারের ঝুঁকি নিয়ে দেশে ফিরলেন ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট

গ্রেফতারের ঝুঁকি নিয়ে সোমবার সস্ত্রীক দেশে ফিরলেন ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদো। সিমন বলিভার বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাকে সমর্থকদের পাশাপাশি তাকে স্বাগত জানান যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের কূটনীতিকরা। এ সময় উপস্থিত সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, গ্রেফতার ও প্রাণনাশের হুমকি সত্ত্বেও তিনি দেশে ফিরেছেন। কেননা রাজনৈতিক সংকট, অর্থনৈতিক ধস এবং ব্যাপক মুদ্রাস্ফীতি থেকে তিনি ভেনেজুয়েলার জনগণকে রক্ষা করতে চান।

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। এরপরই তাকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টিরও বেশি দেশ। গত সপ্তাহে মার্কিন ত্রাণ ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ নিয়ে কলম্বিয়া সীমান্তে মাদুরো সরকারের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় গুইদো সমর্থকরা। ত্রাণ প্রবেশ সমন্বয় করতে এ সময় কলম্বিয়া সফরে যান গুইদো।

ভেনেজুয়েলার আদালতের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এ সফরে যান মাদুরো। কলম্বিয়া ছাড়াও লাতিন আমেরিকার যেসব দেশ ভেনেজুয়েলা সংকটে তাকে সমর্থন জানিয়েছে সেসব দেশও সফর করেন তিনি। এর মধ্যে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, প্যারাগুয়ে ও ইকুয়েডরের মতো দেশগুলো রয়েছে। সোমবার দেশে ফিরেই রাজধানী কারাকাসে সরকারবিরোধী এক বিক্ষোভে যোগ দিয়ে মাদুরো সরকারের পদত্যাগ দাবি করেন হুয়ান গুইদো।

এর আগে রবিবার এক টুইটে গুইদো বলেন, যথাসময়ে দেশে ফিরে তিনি আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার ‘ঐতিহাসিক চ্যালেঞ্জ’ গ্রহণ করতে চান। তবে তার দেশে ফেরার আগ পর্যন্ত নিজের সুনির্দিষ্ট অবস্থান গোপন রাখেন গুইদো। এমনকি দেশে ফেরা সম্পর্কিত অনেক তথ্যও গোপন রাখা হয়। সূত্র: আল জাজিরা।