জিডিপির প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ

২০১৮-১৯ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) পরিমাণ বেড়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জিডিপি  দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ। যেখানে গত অর্থবছরে ছিল ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ। অর্থাৎ বেড়েছে শুন্য দশমিক ২৭ শতাংশ।

এছাড়া বেড়েছে বিনিয়োগের পরিমাণও। তবে কমেছে কৃষি ও সেবা খাতের প্রবৃদ্ধির পরিমাণ।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (এনইসি) সভা শেষে এ তথ্য জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

অর্থমন্ত্রী জানান, গত অর্থবছরে বিনিয়োগ ছিল ৩১ দশমিক ১৩ শতাংশ। চলতি অর্থবছরে সেটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ দশমিক ৫৭ শতাংশে। এর মধ্যে সরকারি খাতের বিনিয়োগ ৮ দশমিক ১৭ শতাংশ এবং বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ ২৩ দশমিক ৪০ শতাংশ।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘অর্থনীতির প্রত্যেকটা খাতেই আমাদের প্রবৃদ্ধি ভালো। আমাদের রপ্তানি বেড়েছে, বিনিয়োগ বেড়েছে। ম্যানুফ্যাকচারি খাত বেড়েছে। মূল যেসব খাত, সবগুলোই আমাদের বেড়েছে। সেজন্য জিডিপির প্রবৃদ্ধি ভালো।’

কৃষি ও সেবা খাতে প্রবৃদ্ধি কমলেও কয়েকটি খাতে তা বেড়েছে। এ বিষয়ে মুস্তফা কামাল জানান, কৃষির প্রবৃদ্ধি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ছিল ১১ দশমিক ০২ শতাংশ। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তা কমে ৯ দশমিক ১৩ শতাংশ। গত অর্থবছরে ইন্ডাস্ট্রিতে (শিল্প) প্রবৃদ্ধি ছিল ১৭ দশমিক ১৩ শতাংশ। এ অর্থবছরে তা ১৭ দশমিক ৬১ শতাংশ। ম্যানুফ্যাকচারিং গত অর্থবছরে ছিল ১৮ দশমিক ২৩ শতাংশ। এ অর্থবছরে তা ১৯ দশমিক ২৮ শতাংশ। সেবা (সার্ভিস) খাতে প্রবৃদ্ধি ছিল গত অর্থবছরে ১২ দশমিক ৮০ শতাংশ। এ অর্থবছরে তা কমে ১২ দশমিক ১০ শতাংশ।