সামাজিক কর্মসূচির সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ

সোলায়মান পিন্টু,কলাপাড়া(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি।। বয়স্কভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, জেলেদের বিশেষ ভিজিএফসহ সরকারের দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচির সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ এনে নিজ পরিষদের নারী সদস্য শাহানারা বেগম শানুর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার। বুধবার রাতে পটুয়াখালীর কলাপাড়া প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।


এসময় লিখিত বক্তব্যে চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার বলেন, শাহানারা বেগম শানু শঠ, প্রতারক, হৃদয়হীন। সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনী কর্মসূচির বিভিন্ন সুবিধাভোগী মানুষের কাছ থেকে কুট কৌশলে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেয়। চেয়ারম্যান আরও জানান, মাতৃত্বকালীন ভাতা ভোগীদের তালিকা প্রনয়নের দায়িত্ব তিনি মহিলা মেম্বারদের দিয়ে থাকেন। ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার শাহানারা প্রত্যেক গর্ভবতী নারীদের কাছ থেকে ২৫০০ করে টাকা আদায় করেছেন। এদের মধ্যে দুইজন নারী আয়শা ওরফে খুকুমনি ও রেখা পারভিন টাকা দিতে অস্বীকুতি জানায় এবং তাঁর (চেয়ারম্যান) কাছে অভিযোগ করেন। এনিয়ে শাহানার বেগমকে তিনি তিরষ্কার করেন এবং টাকা ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে অতি সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদের সামনে শতাধিক মানুষের উপস্থিতিতে আয়শাকে চুলের মুঠি ধরে জুতাপেটা করেন শাহানারা বেগম। ইউপি চেয়ারম্যানকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এ ছাড়া বাল্যবিয়ে ঠেকানোর নাম করে ১০-১২ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেন ওই নারী সদস্যের বিরুদ্ধে।


এসব ঘটনার প্রতিবাদ এবং আইনি প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন ছাড়াও চেয়ারম্যানসহ ১০ জন ইউপি সদস্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানান চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তানভীর রহমান জানান, তিনি এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাননি। পেলে তদন্ত স্বাপেক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।


অভিযুক্ত মহিলা মেম্বার শাহানারা বেগম জানান, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ন মিথা ও বানোয়াট। চেয়ারম্যানের বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের প্রপাগন্ডা চালানো হচ্ছে।

সক/টি