আর গাইবেন না ব্রিটনি!

ব্রিটনি ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ। আর কখনোই গান গাইতে পারবেন না এই পপ তারকা- এমন খবর জানিয়েছেন ব্রিটনির ম্যানেজার। ব্রিটনির ব্যক্তিগত ম্যানেজার ল্যারি রুডলফ জানান, ‘আমার জীবনের অর্ধেক সময় আমি পার করেছি ব্রিটনির দেখা শোনার জন্য। ব্রিটনির প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ হতে এ পর্যন্ত ওর পেছনে ছায়ার মতো ছিলাম। সে অনেকটা আমার মেয়ের মতো। কিন্তু সম্প্রতি সে ভীষণ মানসিক বিপর্যয়ে ভুগছে। আর যে কারণে লাসভেগাসে বসবাসরত বাড়িটিও বিক্রি করে দিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী এই তারকা।’

কারণ হিসেবে রুডলফ বলেন, ‘ব্রিটনির বাবা জ্যামি স্পিয়ার্স ব্রিটনির জীবনে অযাচিত হস্তক্ষেপ করছেন। তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে মানসিক চিকিৎসার জন্য জোর দিয়ে তার জীবনকে বিষিয়ে তুলেছেন, এ নিয়ে লসএঞ্জেলসের আদালতে মামলাও নাকি চলছে।’

ব্রিটনির পক্ষে অবশ্য কথা বলেছেন তার মা লিন। আদালতের কাছে তার মা লিন জানিয়েছেন, ব্রিটনির উপর তার বাবার এ হস্তক্ষেপ বন্ধ হওয়া উচিত, কারণ ব্রিটনি এখন যথেষ্ট প্রাপ্ত বয়স্ক হয়েছে। ২০০২ সালে ব্রিটনি বাবা জেমি স্পিয়ার্সের সাথে তার মা লিন স্পিয়ার্সের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে।

নব্বই দশকের শেষের দিকে আমেরিকান পপ জগতে আবির্ভাব হয়েছিল ব্রিটনি স্পিয়ার্সের। নিজের সৌন্দর্য ও স্টেজ পারফরম্যান্সের মাধ্যেমে পপ গানকে নিয়ে গিয়েছিলেন এক অনন্য উচ্চতায়। ১৯৯৯ সালে বাজারে আসে তার প্রথম অ্যালবাম ‘বেবি ওয়ান মোর টাইম’। রেকর্ড সংখ্যক কপি বিক্রি হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিল অ্যালবামটি।