জ্যামিং অগ্রাহ্যে সক্ষম জিপিএস পরীক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র

জ্যামিং প্রতিরোধী জিপিএস ব্যবস্থার পরীক্ষা চলতি বছরের বসন্তে চালাবে মার্কিন সেনাবাহিনী। ইউরোপ এবং অন্যান্য দেশে রাশিয়া জিপিএস সিগনাল বাধাগ্রস্ত করছে এমন সন্দেহে নতুন ব্যবস্থার পরীক্ষা চালাবে তারা।

জিপিএস জ্যামিং যুক্তরাষ্ট্র আর মিত্রবাহিনীগুলোর জন্য একটি বড় ‘মাথাব্যথা’। এই বাহিনীগুলো ট্র্যাকিং এবং মিসাইল আর ড্রোনের গতিপথ নিয়ন্ত্রণে জিপিএস ব্যবস্থার উপর নির্ভর করে। গেল শরতে নরওয়েতে ট্রিডেন্ট জাংচার নামে একটি যৌথ অনুশীলন পরিচালনা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র ও নেটো মিত্ররা। বড় বহুজাতিক জোটের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ ও দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষমতা নিয়ে এই অনুশীলনে পরীক্ষা চালানো হয়। এতে দেখা গেছে সামরিক বাহিনী জিপিএস সিগনালগুলো জ্যাম হয়ে যাচ্ছে। সেসময় ফিনল্যান্ড আর নরওয়ের সেনা কর্মকর্তারা এজন্য রাশিয়াকে দায়ী করেন। গেল বছর এপ্রিলে মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, সিরিয়ায় ড্রোন পরিচালনা নিয়ে রাশিয়া জিপিএস জ্যাম করে দিয়েছে।

সেনাবাহিনীর ক্রয় উন্নয়নবিষয়ক পজিশনিং, নেভিগেশন অ্যান্ড টাইমিং বিভাগের প্রকল্প ব্যবস্থাপক কর্নেল নিকোলাস কিটাস গেল সপ্তাহে এক সম্মেলনে বলেন, এখন আমরা যা শিখতে পারি তা হলো, সরঞ্জামগুলি কিভাবে তাদের কার্যক্ষমতা ধরে রাখতে পারে। কারণ, কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ার পর আসলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পথ থাকে না। তিনি যোগ করেন, ‘আমরা ক্রমাগত প্রযুক্তি গ্রহণ করছি এবং তাদের নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি, তাদের উন্নত করার চেষ্টা করছি। এটি ক্রমাগত চালিয়ে যাওয়ার বিষয়। এটা ঠিক এমন নয় যে, একটা কাজ করলাম আর হয়ে গেল।

ব্রেকিং ডিফেন্স এর পক্ষ থেকে বলা হয়, দ্বিতীয় ক্যাভালরির মতো ইউনিটগুলোতে এই সিস্টেমগুলো সেনাবাহিনীকে দ্রুত প্রযুক্তিগুলো যাচাই ও উন্নয়নের সুযোগ দেবে। এর ফলে আর পরীক্ষার জন্য বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হবে না।