হুয়াওয়েকে নাৎসি জার্মান সহযোগীর সাথে তুলনা করলো ব্রিটিশ পার্লামেন্ট

ব্রিটিশ পার্লামেন্টারি কমিটির শুনানিতে সোমবার হুয়াওয়ে সম্পর্কে ওই মন্তব্য করে। হুয়াওয়ে কর্তৃপক্ষ এই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানায়। হুয়াওয়ের গ্লোবাল সাইবার সিকিউরিটি এন্ড প্রাইভেসি কর্মকর্তা জন সাফোক ওই শুনানিতে অংশ গ্রহণ করেন। তাকে ব্রিটেনের টেলিকমিউনিকেশনের অবকাঠামো গত নিরাপত্তা বিষয়ে নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়।

যুক্তরাষ্ট্র ইউরোপে হুয়াওয়েকে নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানিয়ে আসছে। তারা দাবি করছে, হুয়াওয়ে নেটওয়ার্ক ব্যবহারে নিরাপত্তা ঝুকি রয়েছে। তাই হুয়াওয়েকে হাইস্পিড ৫জি নেটওয়ার্ক স্থাপন করতে দেয়া উচিত হবে না। হুয়াওয়ে সম্পর্কে মার্কিন পররাস্ট্রমন্ত্রী মম্পেও বলেন, এই কোম্পানির সাথে শুধু চীনই নয়, চীনের কমিউনিস্ট পার্টিরও গভীর সম্পর্ক রয়েছে।

ওই শুনানিতে সাফোক বলেন, হুয়াওয়ে একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান এবং এটি কখনই নিরাপত্তা হুমকি হয়ে দাঁড়াবে না। চীনে এমন কোন আইন নেই যা আমাদেরকে সরকারের হয়ে কাজ করতে বাধ্য করবে। হুয়াওয়ে স্বচ্ছতা বজায় রাখার জন্য এবং মার্চ রিপোর্টে তুলে ধরা সমস্যার সমাধান করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ব্রিটেনের বৃহৎ ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক এর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, হুয়াওয়ের যে কোন ধরণের নিরাপত্তা ঝুঁকি সমাধান করা যাবে।

ভোডা ফোনের প্রধান টেকনোলজি অফিসার স্কট পেটি শুনানিতে বলেন, আমাদের ধারণা ৫জি নেটওয়ার্কের নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

সাফোক এর বক্তব্যকে কমিটির অনেক সদস্য ‘অসাধারণ’ বলে প্রসংশা করেন। তবে, কনজারভেটিভ পার্লামেন্ট সদস্য জুলিয়ান লিউস তাকে ‘নৈতিকতা বিবর্জিত’ বলে আখ্যায়িত করেন। তার এই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানান হুয়াওয়ে নির্বাহী।